২০১৫ বিশ্বকাপ এবং প্রিয় অস্ট্রেলিয়া

২০১৫ বিশ্বকাপ এবং প্রিয় অস্ট্রেলিয়া
নিজের ক্রিকেট সক্ষমতা নিয়ে আমার ধারণা ক্রিকেট আমি বেশ ভালোই খেলি এবং বুঝি। যদিও অনেক নিন্দুক আমাকে চাকার বলে ডেকেছে আমার কৈশোরে তবু ও কখনো ক্রিকেটের প্রতি আমার আনুগত্য বিন্দু পরিমান কমেনি। আমি অস্ট্রেলিয়া আছি আজ প্রায় ১৩ বছর। কত বার ভেবেছি সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ড এ ক্রিকেট খেলা দেখতে যাব, কিন্তু কি যেন এক পিছুটান বার বার বাধ সেধেছে আমার সেই ইচ্ছায়।
ভেবে পাই নি যে আমি মাত্র ৩০ দিনের জন্য বাংলাদেশ যেয়ে শত ব্যস্ততার মাঝেও সদলবলে বিপিএল দেখতে গিয়েছি মিরপুর, সেই আমি কেন ১৩ বছরে এক বারের জন্যও সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ড এর মত বিশ্বখ্যাত মাঠে খেলা দেখতে যাই নি।
আমার স্ত্রীর খুব দুঃখ আমি সারাক্ষণ কি যেন ভাবি, যদিও আমার জানা নেই আমি আসলে কিছু ভাবি কিনা। আমার মনে হয় আমি শূন্যে তাকিয়ে মিনিট এর পর মিনিট কাটিয়ে দিতে পারি কোন কিছু না ভেবে। কিন্তু আমার স্ত্রীর ধারণা মানুষের পক্ষে কয়েক সেকেন্ড এর বেশি কিছু না ভেবে থাকা সম্ভব না। হয়ত সে কারনেই কিছু দিন আগে আমার এসসিজি তে ক্রিকেট না দেখার প্রশ্নের উত্তর পেলাম শূন্যে তাকিয়ে ভাবতে ভাবতে।
একটা সময় ছিল যখন ভারত পাকিস্তান ক্রিকেট ম্যাচ দেখার জন্য উম্মুখ হয়ে থাকতাম, কেউ কোনদিন বলেনি সেটা ঠিক বা ভুল ছিল। বলতে দ্বিধা নেই সাঈদ আনোয়ার, ওয়াসিম আকরাম, আজহার উদ্দিন, শচীন রা আমার কৈশোরের হিরো ছিলেন। তাদেরকে নিজের চোখে দেখার স্বপ্ন মনের গহীনে লালন করেছি আমার আজন্ম কৈশোর। আজ ১৩ বছর পর জীবনের বহু চরাই উতরাই পেরিয়ে আমার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, দেশ নিয়ে ভাবনা, নিজের অস্তিত্ব আর আত্মসম্মান রক্ষার লড়াই বোধ করি আমাকে প্রবল বাধা দিয়েছে সেই আজন্ম স্বপ্ন বাস্তবে পরিনত করতে। আজকাল অবাস্তব মনে হয় আমি তামিম অথবা সাকিব ছাড়া অন্যকারো নামে গ্যালারীতে বসে জয়ধ্বনি দিচ্ছি। ঠিক যেমন করে আমি নিজেকে বাধ্য করেছি হিন্দি সিনেমা থেকে দূরে রাখতে, বাধ্য করেছি অনন্যা সুন্দরী সব বলিউড-ই নায়িকাদের নাম জানতে, তাঁদের ইতিহাস জানতে। জোর করে নিজেকে দূরে রেখেছি কেমন করে অমিতাভ বুড়ো বয়সে আরও তুখোড় অভিনেতা হলেন এসব আলোচনা থেকে। রাগে ফেটে পড়ি যখন শুনি শেবাগ রা বলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম ordinary.
আমার বিশ্বাস এসবই করেছি আমার মায়ের প্রতি অগাধ ভালোবাসা আর তার সন্মান কে সবার উপরে তুলে ধরার অভিলাষ থেকে। বাংলাদেশ আমাকে কি দিয়েছে সে আলোচনায় যাব না। কিন্তু যখন কোন T-Shirt উল্টে দেখতে পাই Made in Bangladesh কেমন যেন এক অদ্ভুত ভালো লাগা আমাকে অবশ করে দেয়। দেশকে প্রতিদান দেয়ার গোপন বাসনা আমাকে কুড়ে কুড়ে খায়। প্রতিনিয়ত ভাবি কি করে আমার বাংলাদেশকে ৫ জন বিদেশির কাছে তুলে ধরেতে পারব? তাই যখন ই সুযোগ পাই বলতে ভুলি না “Bangladesh is the home of Sundarban, the biggest mangrove forest in the world which is the home for Royal Bengal Tigers”. “Bangladesh is the country that has the longest beach in the world”. “Bangladesh has a unique place from where you can enjoy both the sun rise and the sun set”. “Bangladesh is a country that has one thousand rivers unlike any other countries in the world”.
আমি খুবই ভাগ্যবান হাতে গোনা যে কয়জন বন্ধু আছে তারাও সারাক্ষণ দেশ মাত্রিকার জন্য কিছু করতে না পা্রার জন্য প্রচণ্ড রকম অপরাধবোধে ভোগে। সেই বন্ধুরা এবং আমি যখন জানতে পারি আমাদের বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়াতে ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ ২০১৫ খেলতে আসছে আমরা আনন্দে আত্মহারা হয়ে যাই এবং বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি MCG, Manuka Oval বা Gabba তে টাইগার দের কে চিৎকার করে অভিনন্দন জানাতে আমি থাকবোই যদি আল্লাহ্‌ অন্য কিছু না চান।
আমার এই ভাবনা বন্ধুদের বলতেই ওদের কাঁচের মত চকচক করে ওঠা চোখ আমাকে বলে দিলো গ্যালারী তে একা আমাকে চিৎকার করতে হবে না। আমি আরও নিশ্চিত বাংলা মায়ের আরও অনেক পাগল সন্তান অস্ট্রেলিয়া র বিভিন্ন শহরে দলে দলে গর্জন করে জানান দিবে বাংলার অস্তিত্ব।
ভেবে দেখুন, MCG র গ্যালারি সবুজ বাংলায় একাকার আর চ্যানেল 9 এ আপনার টিভি র speaker ফেটে গর্জন করে বের হচছে “দুর্গম গিরি কান্তার মরু দুস্তর পারাবার” কিংবা স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের রক্ত টগবগ করে দেয়া কোন কালজয়ী গণসংগীত। আবহমান বাংলার বাহারি সাজে আমাদের ছোট ছোট শিশুদের দল, সাথে আমাদের স্ত্রী বা বোনেরা লাল সবুজ শাড়ি আর আমি আপনি গামছা লুঙ্গি পরে সারা বিশ্ব কে জানান দিচ্ছি বাংলা মায়ের অস্তিত্ব।
আমাদের সেই অতি লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতেই প্রিয় অস্ট্রেলিয়া আপনার আমার পাশে থেকে নিশ্চিত করতে চায়ঃ
আমরা সব বাঙালিরা একসাথে বসে গ্যালারী সবুজ আর লাল রঙে রাঙ্গাবো আমাদের ব্যাঘ্র সেনাদের স্বাগত জানাতে। সাথে সারা বিশ্বকে জানাতে আমদের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্য সতন্ত্র এবং একান্ত ই আমাদের
প্রিয় অস্ট্রেলিয়া একটি ফোরাম খুলেছে যেখানে আমরা আপনার মতামত ও উপদেশ পেতে চাই, পাশাপাশি কিভাবে আমরা এই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করব এবং আপনি কিভাবে সাহায্য করতে পারেন সেসব তথ্য থাকবে এখানে
এই উৎসব কে ঘিরে আমাদের অনেক আয়োজন আছে যা অতি শীঘ্রই জানতে পারবেন প্রিয় অস্ট্রেলিয়া তে
আমি আগেই বলেছি বাংলাদেশ আমাকে কি দিয়েছে তা বলতে যাবো না কিন্তু বোধ করি জিজ্ঞাসা করলে অযৌক্তিক হবে না আমি কি করেছি বাংলাদেশ এর জন্য?
আমি জানি পদ্মা সেতু বাস্তবায়ন না হওয়ার দায়ে আমি কোন দেশপ্রেমিক কে জেলে ঢুকাতে পারবনা, লাখ লাখ মানুষ এর পুঁজি চুরি করার দায়ে শেয়ার বাজার এর কোন দরবেশ কে কাঠগড়ায় দাড় করাতে আমি অক্ষম, সংসদ এর বাইরে ক্ষমতার কেন্দ্র হাওয়া ভবন সৃষ্টির দায়ে কাউকে জেলে দিতে পারি না কিংবা বিশ্বজিৎ এর রক্তে যারা স্নান করলো তাদের ফাঁসীতে ঝুলিয়ে খুন করতে পারবো না। কিন্তু আমি বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি ২০১৫ তে আমি থাকবো অস্ট্রেলিয়া র সব মাঠে যেখানে ই থাকবে আমাদের ব্যাঘ্র সেনারা, চিৎকার করে বলতে শাবাশ বাংলাদেশ! আর এটা ই আমার বাংলা মায়ের বিশাল ঋণ এর খুদ্র প্রতিদান। আমার দৃঢ় বিশ্বাস আপনিও হতে চান এই মহারনের অবিছেদ্দ অংশ। আর আমাদের সেই আকাঙ্ক্ষা পূরণে প্রিয় অস্ট্রেলিয়া নানা পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। আপনার সহযোগিতা, উপদেশ ও অংশগ্রহন ই হতে পারে আমাদের এই আয়োজন এর সফলতার চাবিকাঠি।
প্রিয় অস্ট্রেলিয়া র এই আয়োজনের অংশ হতে দয়া করে আপনার নাম, ফোন নাম্বার, ই মেল address নীচের comment box এ পাঠীয়ে দিন যাতে আপানাকে জানাতে পারি সব খবরাখবর। প্রিয় অস্ট্রেলিয়া আরও অনেক আয়োজন নিয়ে আপনাদের মাঝে আসবে, জানতে দয়া করে আমাদের সাথে থাকুন্ এবং আমাদের ফোরাম এ চোখ রাখুন।
ধন্যবাদ
প্রিয় অস্ট্রেলিয়া দলের পক্ষে
জাবেদ জাহাঙ্গীর (নয়ন)

No comments

Write a comment
No Comments Yet! You can be first to comment this post!

Write a Comment

Your e-mail address will not be published.
Required fields are marked*