বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হারপার, আলবার্টা প্রদেশের প্রিমিয়ার, স্পীকার ও মন্ত্রীর বাণী

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হারপার, আলবার্টা প্রদেশের প্রিমিয়ার, স্পীকার  ও মন্ত্রীর বাণী

কানাডার সন্মানিত প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হারপার, পিসি, এমপি বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড এথনিক সোসাইটি অব আলবার্টার কাছে প্রেরিত এক বার্তায় আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এ দিবসটি উদযাপনে সোসাইটির ভুমিকায় ব্যক্তিগতভাবে তিনি উষ্ণ আনন্দ প্রকাশ করেছেন।

বার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেন পহেলা বৈশাখ, বাংলা নববর্ষে, আমি সবাইকে অত্যন্ত আন্তরিক ভাবে উষ্ণ শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আজ রাতের উৎসব পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের সংগে একত্রে মিলিত হবার, এবং যে বছরটি গত হয়েছে তার ঐতিহ্যকে প্রতিফলিত করার সুযোগ সৃষ্টি করা। আপনাদের জীবনে প্রতিফলিত অতীত ঐতিহ্য ও আচারানুষ্ঠান আমাদের দেশেও অবদান রাখছে।

আমি বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড ইথনিক সোসাইটি অব আলবার্টা এর প্রশংসা করতে চাই, নববর্ষ উদযাপনে তাদের উদ্যোগ ও অব্যাহত প্রচেষ্টা গ্রহনের জন্য এবং তাদের মধ্যে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক বন্ধন গড়ে তোলার জন্য।

আপনারা এ উপভোগ্য দিবসটি উদযাপনে আমার শুভেচ্ছা গ্রহণ করুন। আপনাদের জন্য আনন্দদায়ক সুস্থ ও সমৃদ্ধ একটি নতুন বছর কামনা করি।

বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড এথনিক সোসাইটি অব আলবার্টা এর সভাপতি দেলোয়ার জাহিদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে ডোনাল্ড স্মীথ এ বার্তাটি প্রেরন করেন। এছাড়াও আলবার্টা প্রদেশের প্রিমিয়ার ও মিনিষ্টার ফর ইনোভেশন এন্ড এডভান্সড এজুকেশন সন্মাণিত ডেভিড হ্যানকক কিউসি, সন্মাণিত স্পীকার জেনে জুঝডেস্কী, সন্মাণিত হিউম্যান সার্ভিস মিনিষ্টার মানমেট এস বোলার, পাবলিক সেফটি সহযোগী মন্ত্রী, রীক ফ্রেছার, এমএলএ ও নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন।

আলবার্টা লেজেসলেটিভ এ্যাসেম্বলীর সন্মাণিত স্পীকার জেনে জুঝডেস্কী, তার এক বার্তায় বলেন যে, সুদূর বাংলাদেশ থেকে আলবার্টার প্রানকেন্দ্রে, পৃথিবীর বাংলা ভাষাভাষি জনগোষ্টী-২০০ মিলিয়নের ও বেশী, একত্রে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করে।

তিনি আরও বলেন নতুন বছর বাংলা ভাষি সম্প্রদায়ের উন্নতি ও অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক এটাই আমার আন্তরিক কামনা। সারা বছর অব্যাহতভাবে আপনারা বাংলা ভাষাগত ও সাংস্কৃতিক চর্চার যে মূল ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রদর্শাধার তা প্রত্যেকেই উপভোগ করবেন।

আলবার্টা বিধানসভার সকল সদস্যদের পক্ষ থেকে আমি আলবার্টার ভাষাগত এবং সাংস্কৃতিক নিগুঢ় বৈচিত্র্য প্রচারের জন্য বাংলাদেশ হেরিটেজ এবং এথনিক সোসাইটি অব আলবার্টা ও আপনাদের অব্যাহত প্রতিশ্রুতি, আগামী বছরের জন্য আরো অনেক আগাম প্রতিশ্রুতি ধারন করায়. অভিনন্দন!

সন্মাণিত ডেভিড হ্যানকক কিউসি, আলবার্টা প্রদেশের প্রিমিয়ার ও মিনিষ্টার ফর ইনোভেশন এন্ড এডভান্সড এজুকেশন এক বার্তায় বলেন, আলবার্টা সরকারের পক্ষ থেকে এটি বাংলা কমিউনিটির সকল সদস্য এবং বন্ধুদের আনন্দমুখর বাংলা নববর্ষ ১৪২১ এর জন্য শুভেচ্ছা পাঠাতে পেরে আনন্দিত.

সৌভাগ্যবান আলবার্টা সারা বিশ্ব থেকে আগত মানুষের আবাস। একটি প্রদেশ হিসাবে, আমরা আমাদের অনেক সম্প্রদায় ও সংস্কৃতির অবদানের মাধ্যমে সম্ভাব্য লক্ষ্যে পৌঁছি. আসছে পহেলা বৈশাখে আপনাদের অভিবাদন,

আগত বছরে আমরা সাধারণভাবে আশা ও প্রতিটি ঐতির্হ্যকে বিকশিত করি যা সবার জন্য শান্তি ও সমৃদ্ধি নিয়ে আসবে।

অনুষ্ঠানটি সংগঠিত করার জন্য বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড এথনিক সোসাইটি অব আলবার্টা এর সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদ. একটি উল্লাসমুখর সন্ধ্যা উপহার দেয়ার জন্য প্রাণঢালা শুভেচ্ছা।

সন্মাণিত হিউম্যান সার্ভিস মিনিষ্টার মানমেট এস বোলার বলেন, বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড ইথনিক সোসাইটি অব আলবার্টাকে হৃদয় নিঙরানো শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন বাঙালী এবং আমরা ১৪ এপ্রিল বাংলা নববর্ষ উদযাপন করি। আলবার্টান এবং কানাডীয়ান হিসাবে, আমাদের এ প্রদেশে বসবাস, আমরা অনেক ভাগ্যবান যে, এ প্রদেশ আমাদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতিকে উৎসাহিত করে আসছে। মাল্টি কালচারাল গ্রুপ যেমন বেশা কে প্রশংসা করতেই হয় তাদের অবদানের জন্য।

আমাদের সংস্কৃতি জগতকে দেখাতে আলবার্টা একটি জানালা . আমরা চাই অন্যরা আমাদের জীবনের মান দেখুক গতিশীল ও স্পন্দনশীল আমাদের সাংস্কৃতিক শিল্পের বিকাশ হিসেবে. সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীগুলো একটি দুর্দান্ত উদাহরণ হিসাবে দেখা হয় আমাদের এ অঞ্চলের সমৃদ্ধির কারণ হিসেবে…

উত্তর আমেরিকায় এবার নজির বিহীন উৎসাহ উদ্দিপনায় বাংলা নববর্ষ উদযাপিত হচ্ছে। বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড এথনিক সোসাইটি অব আলবার্টা এ উপলক্ষে ১৯শে এপ্রিল বিকেল ৫টা থেকে রাত ১২টা অবদি এডমন্টনের প্লেজেন্ট ভিউ হলে ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

No comments

Write a comment
No Comments Yet! You can be first to comment this post!

Write a Comment

Your e-mail address will not be published.
Required fields are marked*